আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ২০:০২

ডাক্তারকে গুলি করে হত্যা করল রোহিঙ্গারা

অনলাইন ডেস্ক
ডাক্তারকে গুলি করে হত্যা করল রোহিঙ্গারা

কক্সবাজারে বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গা ডাকাত নিহতের ঘটনার জেরে রোহিঙ্গাদের হামলায় ডা: আবদুল হামিদ (৪১) নামে এক রোহিঙ্গা পল্লী চিকিৎসক নিহত হয়েছে।

শুক্রবার রাতে শালবাগান এলাকায় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের এ তান্ডবে আরো কয়েকজন আহত হয়।

নিহত ডা. হামিদ টেকনাফ নয়াপাড়া ক্যাম্পের বাসিন্দা মোহাম্মদ হোছনের ছেলে ও ক্যাম্প এলাকার পল্লী চিকিৎসক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সন্ধ্যায় নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরে একদল রোহিঙ্গা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ডিসপেনসারীতে থাকা ডাঃ হামিদকে পাহাড়ের পাদদেশে নিয়ে যায় এবং গুলি করে হত্যা করে।

ডা. হামিদের বোন তাসনিম ও স্ত্রী ফাতেমা জানান, রোহিঙ্গা দুর্বৃত্তরা পল্লী চিকিৎসক হামিদকে অপহরণ করে পাহাড়ে নিয়ে গুলি করে হত্যা করেছে।

ক্যাম্পের রোহিঙ্গারা বলছে, কুখ্যাত ডাকাত সর্দার, আরসা নেতা নুরুল আলম র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহতের ঘটনায় তার সশস্ত্র অনুসারীরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।

নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্প পুলিশ পরিদর্শক আব্দুস সালাম জানান, ঘটনার পর পরিস্থিতি প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং যৌথ বাহিনী টহল জোরদার করেছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সন্ধ্যার পর গোলাগুলির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। পরে পাহাড়ি এলাকা থেকে দুজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। খবর পেয়েছি চমেকে যাওয়ার পথে হামিদ মারা যান।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, এ ঘটনায় কেউ এখনও এজাহার দেননি। এরপরও দুর্বৃত্তদের ধরতে পুলিশ তৎপরতা চালাচ্ছে। এখনও পর্যন্ত কেউ আটক হয়নি।

উপরে