আপডেট : ১০ এপ্রিল, ২০১৮ ২২:০৫

মেয়র মান্নানের কাছে দোয়া চাইলেন হাসান সরকার

অনলাইন ডেস্ক
মেয়র মান্নানের কাছে দোয়া চাইলেন হাসান সরকার

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে দোয়া চেয়েছেন বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) দুপুর ১টার দিকে রাজধানীর বারিধারা ডিওএইচএসের বাসায় মেয়রের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি। 

এসময় হাসান উদ্দিন সরকারের সঙ্গে ছিলেন গাজীপুর জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক শিল্পপতি মো. সোহরাব উদ্দিনসহ স্থানীয় নেতাকর্মীরা। 

সাক্ষাতকালে মেয়র মান্নানকে ধানের শীষের একটি প্রতীক উপহার দেন হাসান উদ্দিন সরকার। তার শরীরের খোঁজ খবর নেন এবং দোয়া চান। এসময় তারা একে অপরকে মিষ্টি খাওয়ান।

এর আগে দুপুর ১২টায় হাসান উদ্দিন সরকার তার টঙ্গীর বাসা থেকে ঢাকার পথে রওনা দেন। 

উল্লেখ্য, সোমবার রাতে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে গাজীপুর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকারকে মেয়রপ্রার্থী ঘোষণা করে বিএনপি।

এর পরদিনই অসুস্থতার খবরে বর্তমান মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নানকে দেখতে তার বাসায় যান মেয়রপ্রার্থী হাসান সরকার।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে এবারও মেয়র পদে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান। তবে আলোচনা শেষে গাজীপুরে হাসান উদ্দিন সরকার ও খুলনায় নজরুল ইসলাম মঞ্জুর নাম ঘোষণা করেছে বিএনপি।

এদিকে দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গাজীপুর থেকে ৭ জন মনোনয়ন চাইলেও মূল প্রত্যাশী ছিলেন অধ্যাপক এম এ মান্নান এবং হাসান উদ্দিন সরকার। তবে তৃণমূল নেতাদের মতামতের ভিত্তিতে দলের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে গভীর পর্যালোচনা করেই হাসান উদ্দিন সরকারকে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে।

গত ৮ এপ্রিল চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার দিতে এসে অধ্যাপক এম এ মান্নান জানিয়েছিলেন, ‘গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে তিনিই বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন।’ তবে তিনি যখন কথা বলছিলেন তখন তাকে শারীরিকভাবে স্বাভাবিক দেখাচ্ছিল না। তার শরীরে কাঁপুনি লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য শারীরিকভাবে ঠিক আছেন কি না -সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবও দেননি তিনি।

দলের নেতারা তাকে ডেকে নিয়ে কী বুঝিয়েছেন তা জানা না গেলেও শারীরিক বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন তারা। দলের হাইকমান্ড মনে করেন, অধ্যাপক আব্দুল মান্নান শারীরিকভাবে সক্ষম নয়। ফলে গাজীপুরে বিএনপিকে শক্তিশালী করতে এই মুহূর্তে সরকার পরিবারের বিকল্প নেই। এছাড়া খুলনায় দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দল থামিয়ে বিএনপিকে আরও সুসংগঠিত করতে নজরুল ইসলাম মঞ্জুর ব্যাপারে আগেই দলের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত ছিল।

অন্যদিকে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা আশা করি অতীতের মত জনগণ আমাদের সঙ্গে থাকবে। গতবারে গাজীপুর লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছি, খুলনায়ও ৬০ থেকে ৭০ হাজার ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছি। আমরা সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ নির্বাচন প্রত্যাশা করছি।’

উপরে