আপডেট : ২ অক্টোবর, ২০১৮ ১৭:৫৪

অনেক গুণের নাশপাতি

অনলাইন ডেস্ক
অনেক গুণের নাশপাতি

বেশ পরিচিত এক ফল নাশপাতি। খেতে সুস্বাদু হওয়ার পাশাপাশি এই ফলের অনেক পুষ্টিগুণও আছে। বিশ্বজুড়ে কয়েক ধরনের নাশপাতির চাষ হলেও মূলত এশিয়া, ইউরোপ ও উত্তর আফ্রিকাতেই এটি বেশি পাওয়া যায়। জেনে নিন নাশপাতির গুণ সম্পর্কে।

ক্যালোরি কম
ক্যালোরি বেশি হওয়ার আশংকায় বিভিন্ন ফলে থাকা প্রাকৃতিক চিনি যারা খেতে চান না, তাদের জন্য সুখবর হলো নাশপাতিতে ক্যালোরির পরিমাণ খুবই কম থাকে। একটি নাশপাতিতে ১০০ ক্যালোরি পাওয়া যায়। এর অর্থ হলো ডাক্তাররা প্রতিদিন যে পাঁচ শতাংশ ক্যালোরি গ্রহণের কথা বলেন, নাশপাতিতে তা আছে। আরও গুরুত্বপূর্ণ হলো এই ক্যালোরি স্বাস্থ্যকর উপায়ে পেয়ে যাচ্ছেন আপনি। নাশপাতিতে থাকা আঁশ আপনার ক্ষুধা মেটাবে সহজে। যারা ওজন কমাতে চান, তাদের জন্য নাশপাতি একটি আদর্শ ফল। কারণ এটি যেমন শক্তি যোগায়, তেমনি এতে পুষ্টিও আছে অনেক।
ক্যানসার প্রতিরোধ করে

নাশপাতিতে প্রচুর পরিামাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। এই ফল তাই ক্যানসার প্রতিরোধ করতে পারে। ব্রেস্ট, লাং, প্রোস্টেট, কোলন ও রেকটাম ক্যানসার দূর করে নাশপাতি। এতে থাকা ভিটামিন এ, ভিটামিন সি ও ফ্ল্যাভোনয়েড অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান রয়েছে।
রোগ প্রতিরোধে

প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে নাশপাতিতে। ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বেশি থাকার কারণে এই ফল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। তাই ফ্লু অথবা ঠাণ্ডাজনিতে রোগে ভুগলে নাশপাতি খাওয়ার পরামর্শ দেন অনেক ডাক্তার।
রক্ত প্রবাহ স্বাভাবিক রাখে

নাশপাতিতে প্রচুর আয়রন ও কপার থাকে, যা অ্যানিমিয়ার প্রাকৃতিক চিকিৎসায় ভালো ভূমিকা রাখে। শরীরে আয়রনের পরিমাণ বেড়ে গেলে রক্তে লোহিত কণিকার পরিমাণ বাড়ে। তাই নাশপাতি খেলে অ্যানিমিয়া, মাংস পেশির দুর্বলতা, ক্লান্তি ও শারীরিক অবসাদ দূর হয়।
শিশু জন্মে ত্রুটি দূর করে

নাশপাতিতে প্রচুর ফলিক অ্যাসিড থাকে। আর তাই প্রেগন্যান্ট নারীদের নাশপাতি বেশি খাওয়ার পরামর্শ দেন ডাক্তাররা। এটি নবজাতকের শারীরিক সমস্যা দূর করে।
হাড়ের সমস্যা দূর করে
অস্টিওপোরোসিসসহ হাড়ের বিভিন্ন সমস্যা যাদের আছে, তাদের জন্য উপকারী ফল নাশপাতি। এতে থাকা কপার, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম হাড়ের ক্ষয়রোধ করে হাড় মজবুত রাখে।
হজম শক্তি বাড়ায়

নাশপাতি খেলে প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ১৮ শতাংশ আঁশ পাওয়া যায়, যা হজম প্রক্রিয়ার জন্য খুব জরুরি। এই ফলে থাকা আঁশ অদ্রবণীয় পলিস্যাকারাইড। আর তা অন্ত্রে গিয়ে হজমে বড় ভূমিকা রাখে। নাশপাতি খাওয়ার পর পাকস্থলীতে ডাইজেস্টিভ ও গ্যাস্ট্রিক জুস বেড়ে যায়, যা খাবারকে সহজে হজমে সাহায্য করে। নাশপাতি বাওয়েল মুভমেন্ট ঠিক রাখে ও ডায়রিয়ার আশংকা কমায়।

ব্যথা কমায়
আপনার যদি আথ্রাইটিস বা শরীরের কোনও ব্যথা থাকে, তাহলে নাশপাতি খেলে উপকার পাবেন। এতে থাকা ফ্লেভোনয়েড ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

তথ্যসূত্র: ইনস্টিকস ডট কম

উপরে