আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ২০:৫৯

কমান্ডো অভিযানে বিমান ছিনতাইকারী নিহত

অনলাইন ডেস্ক
কমান্ডো অভিযানে বিমান ছিনতাইকারী নিহত

এক অস্ত্রধারীর বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টার পর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর স্পেশাল ফোর্স চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরের দায়িত্ব গ্রহণ করেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানিয়েছে আইএসপিআর।

কমান্ডো অভিযানে সন্দেহভাজন অস্ত্রধারী ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক করার পর মৃত্যু হয়েছে তাঁর। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে, এই ঘটনায় কোনো যাত্রী বা ক্রু আহত হননি। সন্দেহভাজন ছিনতাইকারীকে জিজ্ঞাসাবাদে বিস্তারিত জানা যাবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।   

এর আগে ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া দুবাইগামী বিজি-১৪৭ ফ্লাইটটি এক অস্ত্রধারী ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। রবিবার বিকাল ৫টা ৩৫ মিনিটের দিকে বিমানটি জরুরি অবতরণের পর ঘিরে রাখে পুলিশসহ বিভিন্ন সংস্থা। পাইলটসহ যাত্রীরা নিরাপদে বিমান থেকে নামতে সক্ষম হন।

ওই ফ্লাইটটির যাত্রী ছিলেন সংসদ সদস্য মইনুদ্দিন খান বাদল। তিনি জানিয়েছেন, সন্দেহভাজন ব্যক্তি বাঙালি। তিনি একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে বলেন, ‘পাইলট আমার কাছে এসেছিল। বলেছে একজন শুট (গুলি) করেছে। পাইলট তাকে পারসু (প্রভাবিত) করার চেষ্টা করেছে। হাইজাকার বলেছে, সে শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলতে চায়।’

এদিকে ছিনতাইয়ের কবল থেকে রক্ষা পেয়ে ময়ুরপঙ্খী নামের উড়োজাহাজটি জরুরি অবতরণের পর বিমানবন্দরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। উৎসুক জনতা ভিড় করে বিমানবন্দরের সামনে। পুলিশ, র‌্যাব, তিন বাহিনীর সদস্য এবং ফায়ার সার্ভিসের বেশ কয়েকটি ইউনিট ঘটনাস্থলে হাজির হয়। প্রায় দুই ঘন্টায় অবসান ঘটে জিম্মি সংকটের।

উপরে